Home / Uncategorized / ফেসবুক অ্যাকাউন্টের মূল্য ৭০,০০০ টাকা!

ফেসবুক অ্যাকাউন্টের মূল্য ৭০,০০০ টাকা!

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপনার একটি অ্যাকাউন্ট আছে। আপনার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ, ডিএ্যাকটিভ বা রাখতে হবে। বিনিময়ে আপনাকে কিছু অর্থ দেয়া হবে। এজন্য কত টাকা আসা করেন আপনি? গবেষণা বলছে, কম-বেশি যাই দাবি করুন না কেন, একটি অ্যাকাউন্টের মূল্য গড়ে প্রায় ৭০ হাজার টাকা। অর্থাৎ একজন ব্যবহারকারীকে ৭০ হাজার টাকা দিলে তিনি তার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ, হস্তান্তর বা ডিঅ্যাকটিভ করতে রাজি হন।

ব্যবহারকারীদের কাছে এই সামাজিক মাধ্যমটি কতটা মূল্যবান তা নিয়ে এক জরিপ পরিচালনা করা হয়েছে। ‘প্লাস ওয়ান’ নামর একটি জার্নালে ওই জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের টাফ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ওই জরিপে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিলামের ব্যবস্থা করে। এজন্য অ্যাকাউন্টধারীরা কত টাকা প্রত্যাশা করেন তা জানতে চাওয়া হয়। এর উত্তরে এমন গড়ে ৭০ হাজার টাকা প্রত্যাশা করে ব্যবহারকারীরা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপনার একটি অ্যাকাউন্ট আছে। আপনার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ, ডিএ্যাকটিভ বা রাখতে হবে। বিনিময়ে আপনাকে কিছু অর্থ দেয়া হবে। এজন্য কত টাকা আসা করেন আপনি? গবেষণা বলছে, কম-বেশি যাই দাবি করুন না কেন, একটি অ্যাকাউন্টের মূল্য গড়ে প্রায় ৭০ হাজার টাকা। অর্থাৎ একজন ব্যবহারকারীকে ৭০ হাজার টাকা দিলে তিনি তার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ, হস্তান্তর বা ডিঅ্যাকটিভ করতে রাজি হন।

ব্যবহারকারীদের কাছে এই সামাজিক মাধ্যমটি কতটা মূল্যবান তা নিয়ে এক জরিপ পরিচালনা করা হয়েছে। ‘প্লাস ওয়ান’ নামর একটি জার্নালে ওই জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের টাফ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ওই জরিপে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিলামের ব্যবস্থা করে। এজন্য অ্যাকাউন্টধারীরা কত টাকা প্রত্যাশা করেন তা জানতে চাওয়া হয়। এর উত্তরে এমন গড়ে ৭০ হাজার টাকা প্রত্যাশা করে ব্যবহারকারীরা।

আঁচিল দূর করুন এই ঘরোয়া উপায়ে
আঁচিল নিয়ে অনেকেরই খুবই সমস্যায় পড়তে হয়। জানেন কি টাকা খরচ করে ওষুধ না খেয়েও ঘরোয়া জিনিস দিয়ে এর নিরাময় সম্ভব? আসুন দেখে নিই কি কি ঘরোয়া পদ্ধতি প্রয়োগে দূর করা যায় আঁচিল- অ্যাপল সিডার ভিনিগার: ভিনিগারে ভেজানো তুলা আঁচিলের উপর রেখে দিন সারা রাত। পাঁচ দিন করুন। অ্যাপল সিডার ভিনিগারে প্রচুর অ্যাসিড রয়েছে। এই অ্যাসিড প্রাকৃতিক ভাবে আঁচিল বা জড়ুল পুড়িয়ে দেয়। ফলে জড়ুলের বৃদ্ধি রদ হয়।

অ্যালভেরা: একটা অ্যালভেরা পাতা কেটে নিন। ভিতরের থকথকে জেলিটা ওই জায়গায় লাগিয়ে দিন। কয়েকদিন করলেই আঁচিল শুকিয়ে যাবে। নিজে থেকে ঝরেও যাবে। অ্যালোভেরার মধ্যে উপস্থিত ম্যালিক অ্যাসিড এই ম্যাজিক করে দেখাবে। বেকিং পাউডার: ক্যাস্টর অয়েল এবং বেকিং পাউডারের একটি মিশ্রণ তৈরি করে ফেলুন। মিশ্রণটা আঁচিলের উপর ভাল করে লাগিয়ে বেঁধে রাখুন জায়গাটা। সারা রাত এই ভাবে রেখে দিন। দু-তিন দিন পর থেকেই ফল পেতে শুরু করবেন। ক্রমশ আঁচিল অদৃশ্য হয়ে যাবে।রসুন: ত্বকের যত্নে রসুন খুবই উপকারি। অ্যালিসিন রয়েছে রসুনে। অ্যালিসিন অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল। রসুন থেঁতো করে ওই জায়গায় লাগালে উপকার হবে।কলার খোসা: কলা খেয়ে খোসাটা ফেলবেন না। খোসার উৎসেচক ত্বককে রক্ষা করে। রোজ কলার খোসা আঁচিল বা জড়ুলের উপর ঘষলে ফল পাবেন।

চোখ শুকিয়ে যাওয়া আটকাতে ৬টি ঘরোয়া পদ্ধতি
চোখ শরীরের সবচেয়ে সংবেদনশীল এক অঙ্গ। শুষ্ক চোখের সমস্যা তখনই দেখা যায় যখন চোখের পৃষ্ঠের উপর পর্যাপ্ত তৈলাক্তকরণ, পুষ্টি এবং আর্দ্রতার অভাব ঘটে। চোখ যখন তৈলাক্ত থাকার জন্য যথেষ্ট অশ্রু তৈরি করতে অক্ষম হয় বা অশ্রুর মান খুব খারাপ হয় এবং খুব দ্রুত বাষ্পীভূত হয়, তবে তা চোখের শুষ্কতা, জ্বালা, প্রদাহ এবং বিবর্ণ দৃষ্টির সৃষ্টি করতে পারে।

শুষ্ক চোখের সমস্যা নানা কারণে হতে পারে। যেমন- চোখের ডিজিটাল স্ট্রেন, চোখের অ্যালার্জি, চোখের আগেকার কোনও অস্ত্রোপচার, অনেকক্ষণ চোখের পাতা না ফেলা, কিছু নির্দিষ্ট ওষুধ বা বার্ধক্য। শুষ্ক চোখের কিছু সাধারণ উপসর্গ হল, লাল চোখ, চোখের চুলকানি, চোখ ফোলা, চোখ জ্বালা করা, হালকা সংবেদনশীলতা, চোখ লালচে হওয়া বা চোখের ঘা।

শুষ্ক চোখের উপসর্গ উপশমের ৬ টি ঘরোয়া প্রতিকার: ১. ভিটামিন ডি: ভিটামিন ডি-এর অভাব হলে চোখ শুষ্ক হয়ে যায়। ভিটামিন ডি সম্পন্ন খাবার শুষ্ক চোখের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করতে পারে। ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ কিছু খাবার হল ডিমের কুসুম, আখরোট, পনির, ফ্যাটি মাছ যেমন স্যামন বা টুনা, বাদাম এবং বীজ। ২. ঘন ঘন চোখের পাতা ফেলুন: যদি একটানা কাজ করতে করতে থাকেন তাহলে মাঝে মাঝে বিরতি নিয়ে ঘন ঘন চোখ খোলা বন্ধ করুন। বিশেষ করে কম্পিউটার, মোবাইল ফোন বা টেলিভিশন দেখার সময় বিরতি দেয়ার চেষ্টা করুন। মাঝে মাঝে বিরতি আপনার চোখের আর্দ্রতা ফিরে পেতে সাহায্য করবে।

৩. পরিবেশ পরিবর্তন করুন: শুষ্ক চোখের সমস্যায় পরিবেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। সিগারেটের ধোঁয়া এড়িয়ে চলা উচিত। সিগারেটের ধোঁয়ায় চোখ চোখ লাল হয়ে যেতে পারে। এছাড়াও, যখন আপনি সাইকেল চালাচ্ছেন বা স্কিইং করছেন তখন চশমা ব্যবহারের মাধ্যমে বাতাস থেকে আপনার চোখ রক্ষা করুন। নিয়মিত সানগ্লাস পরুন। ৪. তরল খান প্রচুর পরিমাণে: সারা দিন প্রচুর পরিমাণে তরল পদার্থ পান করুন। এই তরল শুষ্ক চোখের উপসর্গ উপশমে সাহায্য করবে। পানি ছাড়াও তাজা ফলের রস, নারকেলের পানি এবং সাধারণ স্মুদি খেতে পারেন। ৫. গরম সেঁক: চোখকে আরাম দেওয়ার জন্য চোখে হালকা গরম সেঁক দিতে পারেন। প্রতিদিন এই দুই থেকে তিন বার সেঁক দিন। ৬. পর্যাপ্ত ঘুম: ঘুম কম হলেও চোখ শুষ্ক চোখ হতে পারে। পর্যাপ্ত ঘুম কর্নিয়ার আর্দ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। অতএব, প্রতিদিন ছয় থেকে আট ঘণ্টার ঘুম নিশ্চিত করুন।

About admin

Check Also

সহবাসে’র শুটিং শুরু তাদের!

ছেলেটি কলকাতার কর্পোরেট সেক্টরে কাজ করে। আর মেয়েটি ক্রিয়েটিভ অ্যাড এজেন্সির সঙ্গে জড়িত। ছবিটির গল্প …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *