Home / Uncategorized / ভাইরাস তাড়াবেন স্মার্টফোনের যেভাবে!

ভাইরাস তাড়াবেন স্মার্টফোনের যেভাবে!

বিভিন্ন কারণেই স্মার্টফোনে ভাইরাস ঢুকতে পারে। ভাইরাসের কারণে নানাবিধ অনাকাঙ্ক্ষিত সমস্যার মুখোমুখি হই আমরা। আসুন জেনে নেই স্মার্টফোন সহজেই কীভাবে ভাইরাসমুক্ত করা যায়। বেশ কিছু সহজ উপায়ে স্মার্টফোন ভাইরাস মুক্ত করা যায়। ১.আপনার স্মার্টফোনটি সুইচ অফ করুন এবং সাউন্ড বাটন এবং অফ বাটন এক সঙ্গে প্রেস করে ফোন রিবুট করুন। ২. রিবুট অপশন খুললে সেইখানে রিস্টার্ট বাটন প্রেস করুন, যাতে এই সময় ফোনে কোনও রকম ক্ষতি না হয়।

৩. রিস্টার্ট হয়ে গেলে সেটিংস অপশনে যান এবং অ্যাপ অপশনে যান ৪. আপনি যা অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন, সেইগুলো একবার দেখে নিন। কোনও রকম অযাচিত অ্যাপ দেখলে সেইটাতে ক্লিক করুন। ৫. এরপর এই অযাচিত অ্যাপটি আন ইনস্টল করুন। ৬. যদি আন ইনস্টল বাটনটি না থাকে, তা হলে প্রথমে অ্যাপটি থেকে ‘অ্যাডমিন অ্যাক্সেস’ প্রত্যাহার করতে হবে। এরপর আবার সেটিংস থেকে সিকিউরিটি অপশনে গিয়ে ডিভাইস অ্যাডমিনিস্ট্রেটরঅপশনে গিয়ে যে অ্যাপগুলি অযাচিত, সেইগুলো সিলেক্ট করে আন ইনস্টল করুন। ৭. এইবার ফোনটি আবার রিস্টার্ট করুন। কিন্তু মাথায় রাখবেন এইবার কিন্তু নরমাল মোডে রিস্টার্ট করতে হবে। ৮. যদি উপরের পদ্ধতিতে কোনও কাজ না হয়, সে ক্ষেত্রে সেটিংস অপশনে গিয়ে- সিস্টেম – রিসেট অপশন – ইরেস অল ডেটা অপশন সিলেক্ট করতে হবে।

রাজধানীতে ৫ জেএমবি সদস্য আটক
সরকারি স্থাপনায় হামলার পরিকল্পনা করছিলো জেএমবির সারোয়ার-তামিম গ্রুপের সদস্যরা। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে সংগঠনটির পাঁচজনকে আটকের পর র‌্যাবের সংবাদ সম্মেলনে একথা জানানো হয়। র‌্যাব আরো জানায়, গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে দুজন বুয়েট থেকে পাস করা প্রকৌশলী। তাদের কাছ থেকে উগ্রবাদী বই ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে।

র‌্যাব জানায়, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে রাজধানীর বাড্ডা এলাকা থেকে অলিউজ্জামান অলি নামে একজনকে আটক করেন তারা। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে লালবাগ, সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড ও পূর্ব কাজীপাড়া এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় বাকি সদস্যদের। র‌্যাব জানায়, বুয়েট থেকে পড়াশোনা শেষে অলি একটি বহুজাতিক কোম্পানিতে এবং আনোয়ার একটি কোচিং সেন্টারে কাজ করতো। বুয়েটে পড়ার সময় বিভিন্ন বই পুস্তক, লিফলেট ও ইন্টারনেটের মাধ্যমে জঙ্গিবাদে আসক্ত হয় তারা। পরবর্তীতে ২০১৫ সালের শেষ দিকে জেএমবির সারোয়ার তামিম গ্রুপের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয় তারা।

এছাড়া আবুল কাশেম ও সালেহ আহমেদ শীষ নামে দুজন মাদ্রাসায় পড়াশোনা করেছে। অপরজন মোহন ওরফে মহসিন তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে। তবে কোন ধরণের সরকারি স্থাপনায় হামলার পরিকল্পনা করছিলো গ্রেফতারকৃতরা, বড় ধরণের নাশকতা চালানোর সক্ষমতা তাদের আছে কি না প্রশ্ন ছিলো র‌্যাব কর্মকর্তার কাছে। এই গ্রুপের আরো দুজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি। জেএমবির সারোয়ার তামিম গ্রুপ সাংগঠনিকভাবে অনেকটা দুর্বল হয়ে যাওয়ায় এখন ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে কাজ করছে বলে তথ্য পাওয়ার দাবি র‌্যাবের।

শ্রীলঙ্কার ‘অদ্ভুতুড়ে’ বোলার!
যুগে যুগে একাধিক বোলার এসেছেন শ্রীলঙ্কায় যারা অপ্রচলিত বোলিংয়ের জন্য ক্রিকেট বিশ্বে আলোচিত হয়েছেন। কিংবদন্তী স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরন থেকে শুরু করে লাসিথ মালিঙ্গ এবং সবশেষ অজন্তা মেন্ডিস। এবার আরও অদ্ভুতুড়ে বোলিং অ্যাকশন নিয়ে আসলেন শ্রীলঙ্কার অনূর্ধ্ব-১৯ দলের এক স্পিনার, নাম কেভিন কোত্থিগোদা। মালয়েশিয়ায় যুব এশিয়া কাপে খেলছেন কোত্থিগোদা। তাঁর বোলিং অ্যাকশন অনেকটা সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান বামহাতি চায়নাম্যান বোলার পল অ্যাডামসের মতো। তবে কোত্থিগোদা বল করেন ডান হাতে।

রিচমন্ড কলেজে পড়ার সময়ে তাঁর কোচ ছিলেন শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের সাবেক ওপেনার ধাম্মিকা সুদর্শনা। এই লেগস্পিনার সম্পর্কে সুদর্শনা বলেন, ‘ওর একটি অপ্রচলিত অ্যাকশন রয়েছে। কিছুটা পল অ্যাডামসের মতো। অ্যাকশনটা সে নিজে নিজেই শিখেছে, কোচিং করানো হয়নি। বলের লেংথ নিয়ে কিছুটা সমস্যা ছিল, কারণ বল ছাড়ার সময় পিচ দেখতে পেত না। এখন সে এটা দারুণভাবে কাটিয়ে উঠেছে।’ তাঁকে ম্যাচে দেখার পর আম্পায়ার শরৎ অশোকা বলেছেন, ‘ওর দারুণ একটা অ্যাকশন রয়েছে। কিন্তু সে ঠিক জায়গাতেই বল ফেলে। ছেলেটা খুবই ভালো, ভবিষ্যৎও উজ্জ্বল।’

About admin

Check Also

সহবাসে’র শুটিং শুরু তাদের!

ছেলেটি কলকাতার কর্পোরেট সেক্টরে কাজ করে। আর মেয়েটি ক্রিয়েটিভ অ্যাড এজেন্সির সঙ্গে জড়িত। ছবিটির গল্প …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *